স্বাস্থ্যকর ইফতার…

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আলভী রহমান শোভন

ইফতারীতে ভাজা-ভুজি খাওয়া একেবারে এড়িয়ে যাওয়াই ভালো। ঠান্ডা এবং কম তেলযুক্ত খাবারই এখন ডাক্তাররা খেতে বলেন।তাতে শরীর ভালো থাকে।খাওয়াটাও আরামদায়ক হয়।আর এমনি কিছু ইফতারের রেসেপি আপনাদের জন্য দিয়েছেন আলভী রহমান শোভন

বাদাম ও দুধের শরবত

উপকরণ:

ঠান্ডা দুধ- আধা লিটার (ঘন)

বাদাম ও দুধের শরবত

পেস্তা বাদাম কুচি- সিকি কাপ

কাঠ বাদাম কুচি- সিকি কাপ

মধু- ২ টেবিল চামচ

চিনি- ৪ টেবিল চামচ

বরফ কুচি- আধা কাপ।

জাফরান দানা- কয়েকটি

প্রণালী:

কাঠ বাদাম ও পেস্তা বাদাম ২ ঘণ্টা সময় ধরে পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে।

২ ঘণ্টা পরে পানি থেকে তুলে নিয়ে কুচি করে কাটতে হবে।

কাটা হয়ে গেলে একে একে ব্লেন্ডারে সব উপকরণ ও বাদামসহ ঢেলে দিতে হবে।

এবার ব্লেন্ডারের ঢাকনা বন্ধ করে ব্লেন্ড করে নিলেই তৈরি হয়ে যাবে মজাদার ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা দুধ বাদামের শরবত।

 

পালং পরোটা

উপকরণ:

আটা- দেড় কাপ

পালং পরোটা

তেল- ২ টেবিল চামচ

পেঁয়াজ কুচি- ২ টেবিল চামচ

পালং শাক কুচি- হাফ কাপ

মরিচ কুচি- ৪-৫ টা

জিরের গুড়া- ১ চা চামচ

রসুনের বাটা – ২-৩ টা

ধনেপাতাকুচি – হাফ কাপ

গ্রেট করা পনির- এক কাপ

পানি পরিমাণমত

দই- ১ টেবিল চামচ

চিনি- ১ চা চামচ, কেউ মিষ্টি বেশি খেলে বেশি দিতে পারেন।

প্রণালী:

পালং পরোটা তৈরি করতে প্রথমে পালং শাক কুচি, পেঁয়াজকুচি, রসুন বাটা, মরিচ কুচি, জিরের গুড়া ১ চা চামচ এবং ধনে পাতা কুচি সব এক সঙ্গে ভালো করে মাখিয়ে নিতে হবে। তারপর আটার সঙ্গে লবন ও হালকা তেল দিয়ে এই মাখানো সকল সবজির সঙ্গে মাখাতে হবে।

এবার তাতে গ্রেট করে রাখা পনির, ১ চা চামচ চিনি ও দই দিয়ে দিতে হবে। তারপর সামান্য পানি দিয়ে আটা মাখতে হবে। আটা মাখা হয়ে গেলে খানিকক্ষণ রেখে দিয়ে।

এবার গোল গোল কেটে পরোটা বেলে নিতে হবে। প্যানে তেল দিয়ে গরম হয়ে গেলে পরোটা ভাজতে হবে। পরোটা ভাজা হয়ে গেলে দই পুদিনা দিয়ে পরিবেশন করতে পারেন।

ওটস খিচুড়ি

উপকরণ:
ওটস- ২ কাপ
মুরগীর মাংস কুচি- ৩/৪ টুকরা

ওটস খিচুড়ি

সবজি-(গাজর,মটরশুঁটি যা পছন্দের)
ধনে পাতা কুচি- আধা কাপ
হলুদ গুঁড়ো- আধা চা চামচ
পেঁয়াজ ও কাঁচা লঙ্কা কুচি- খানিকটা
মরিচ গুঁড়ো- সামান্য
লবণ- স্বাদ মত
ভাজা জিরা গুঁড়ো- সামান্য
তেল- সামান্য
মিহি রসুন কুচি- ১ চা চামচ
আদা ও রসুন বাটা- ১ চা চামচ

 প্রণালী:
শুকনো প্যানে ওটসগুলোকে ৫ মিনিট ভেজে নিন। তারপর ঠাণ্ডা করে একটি পাত্রে রেখে দিন।প্যানে অল্প তেল দিয়ে পেঁয়াজ ও কাঁচা মরিচ (আমি শুকনো লঙ্কা দিয়েছি) দিয়ে ভাজুন।পেঁয়াজ একটু বাদামী রঙের হলে সবজিগুলো দিয়ে সব মশলা ও লবণ দিয়ে ভাজুন। এরপর রান্না করা মুরগীর মাংস এবং ওটস গুলো দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে পানি দিয়ে দিন।এবার ঢাকনা দিয়ে রান্না করুন পানি শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত। পানি শুকালে ধনে পাতা ছিটিয়ে নামিয়ে নিন।

২ কাপ ওটসে চারজনের জন্য চমৎকার ইফতার হয়ে যায়। ওটসে ক্যালোরি খুব কম থাকে আবার স্বাস্থ্যকরও বটে। এতে রয়েছে হাই ফাইবার যা ওজন কমাতে সহায়ক।

চিকেন সাল্যাড

উপকরণঃ 

চিকেন সাল্যাড

শশা ,আলু , গাজর ও তিন রঙের ক্যাপ্সিকাম কিউব করে কাটা সবমিলিয়ে  ৩ কাপ

 

ডিম স্বেদ্ধ- ১টি ,

সয়াসস + লবন + সাদা গোলমরিচ + স্বাদ লবণ- পরিমান মত

স্বেদ্ধ চিকেন টুকরো- এক কাপ

মেয়োনিজ- ২০০-২৫০ গ্রাম

লেবুর রস- ১ টেবিল চামচ  ।

প্রণালীঃ 

এবার সব উপকরণ একসঙ্গে দিয়ে আস্তে আস্তে মেশাতে হবে । পরিবেশনের আগে ডিমের কুসুম কুচি করে দিয়ে দিতে হবে ।

 

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com