মুশফিকের বক্তব্যে বিরক্ত সবাই

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আহসান শামীমঃ চট্রগ্রাম টেষ্ট শুরুর প্রথম থেকেই বাংলাদেশ টেষ্ট দলের অধিনায়ক মুশফিকের কথাবার্তা বেশ ঝাঁঝাল ছিল । টেষ্ট শুরুর আগের সংবাদ সম্মেলনে হেড কোচকে নিয়ে তাঁর মন্তব্য কখনও শোভনীয় বলে মনে হয়নি। টেষ্ট শেষেও মুমিনুল , নাসিরের দুই ইনিংসে হঠাৎ করে পজিশন পরির্বতন । টপ অর্ডারে পাঁচ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান , নিজের অবস্থান সম্পর্কেও গনমাধ্যমের কাছে দেওয়া মুশফিকের মন্তব্য কখনও কাঙ্খিত বলে মনে হয়নি। এমনকি প্রথম ইনিংসে অজিদের ব্যাটিং এর সময় চেনা মুশফিকের বডি ল্যানগুয়েজও অবাক করেছে ক্রিকেট ভক্ত আর বিশেষজ্ঞদের । টিম ম্যানেজমেন্ট নিয়ে মুশফিকের মন্তব্যে চটেছেন বিসিবির সর্বোচ্চ অভিভাবক নাজমুল হাসান পাপনও।

বিসিবি সভপতি মনে করেন,নেতৃত্বগুণে সমস্যা আছে মুশফিকুর রহিমের। নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘আমি আপনাদের একটা সাধারণ জিনিস বোঝাই। সমস্যা মুশফিকের। মাশরাফি অধিনায়কত্ব করে না ? ও কখনোই এরকম সমস্যার সম্মুখীন হয়নি। সাকিবকে দেওয়া হয়েছে টি-টুয়েন্টির দায়িত্ব। সেও দেখবেন কোনো সমস্যায় পড়বে না, এটা আমি লিখে দিতে পারি। কেননা এই বিষয়গুলো অধিনায়কেরই সিদ্ধান্ত। আমরা শুধু সুবিধা দিতে পারি, মাঠের বাইরে কোচ সাহায্য করতে পারে। কখন কি করতে হবে সে সিদ্ধান্ত অধিনায়ককেই নিতে হবে।’ শুক্রবার ৮ সেপ্টেম্বর বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন আরও জানালেন, ‘চট্টগ্রাম টেস্টে মুশফিককে চারে খেলতে বলা হয়েছিল কিন্তু মুশফিক সে কথা শোনেনি ।’

অন্যদিকে ,বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খানও শুক্রবার সংবাদমাধ্যমকে বললেন, ‘বোর্ড সিনিয়র খেলোয়াড়দের অনেক সম্মান করে। তাদের আইডিয়া-পরামর্শ গুরুত্বের সঙ্গে নেয়। এটাও সত্যি, এই গরমে সারা দিন কিপিং করে চারে ব্যাটিং করা কঠিন । মাঠে অধিনায়কেরও দায়িত্ব আছে। সিনিয়র খেলোয়াড় ও অধিনায়ক হিসেবে দলের স্বার্থ ওকেই বেশি দেখতে হয়। আগেও টেস্টে আমরা তাকে শুধু ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলিয়েছি। সে আমাদের দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে মুশফিকের কিপিং নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত হলেও হতে পারে, এমন ইঙ্গিত থাকল আকরামের কথায়, ‘উভয় পক্ষের বসে ঠিক করতে হবে। এই ভাবনাটা ছিল বলেই লিটনকে দলে রাখা (অস্ট্রেলিয়া সিরিজে)। মুশফিকের মাথায় যেহেতু কিপিংয়ের বিষয়টা এসেছে, দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে যেটা ভালো হয় আমরা সেটা করব।’

মুশফিকের বেসামাল কথায় চটেছেন হেড কোচ হাতুড়াসিংহ থেকে শুরু করে টিম স্টাফরাও । যদিও এ বিষয় কেউ প্রতিক্রিয়া প্রকাশে রাজী হননি। বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ অধিনায়কের মন্তব্যে বিস্মিত হলেও প্রকাশ্য মন্তব্য করে উত্তেজনা বাড়াতে চান না। সামনে সাউথ আফ্রিকা সফর, সেই সফরে মুশফিকর জন্য কোন সুযোগই থাকছে না উইকেটের পেছনে দাঁড়ানোর । জায়গাটা সম্ভবত দখল করবেন লিটন দাস। সাউথ আফ্রিকার দল দুই একদিনের মধ্যেই ঘোষনা করা হবে। সফরে পাঁচ পেসার নিশ্চিত। মোসাদ্দেকের চোঁখের সমস্যার রিপোর্ট রোববারের মধ্য হাতে পাবেন নির্বাচকমন্ডলী। সেই রিপোর্টের ওপর মোসাদ্দেকের দলে থাকা না থাকার বিষয়টা নির্ভর করবে। আগামী ১৫ কিংবা ১৬ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ দলের সাউথ আফ্রিকার উদ্দেশ্য রওনা হবার কথা। এর আগেই মুশফিককের বিষয় সমস্যা সমাধান করা হবে বলে জানিয়েছেন আকরাম খান।

ছবিঃ গুগল

 

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com