বড় হবার প্রবল ইচ্ছা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শিল্পী কনকচাঁপা এবার গানের পাশাপাশি প্রাণের বাংলার পাতায় নিয়মিত লিখছেন তার জীবনের কথা। কাটাঘুড়ির মতো কিছুটা আনমনা সেসব কথা, হয়তো কিছুটা অভিমানিও। কিছুটা রৌদ্রের মতো, খানিকটা উজ্জ্বল হাসির মতো।

কনকচাঁপা ক্লাস সেভেন এইটে পড়াকালীন খুব বড় হয়ে উঠতে ইচ্ছা জাগলো প্রবলভাবে। ক্লাসের পড়া গুলো সময়ের আগেই শেষ করে ফেলতাম। বাড়ির কাজ ও করে ফেলতাম। অ্যালজেবরার প্রেমে পড়ে গেলাম। কিন্তু সরল আর সুদকষা র সঙ্গে পেরে উঠছিলাম না। আসলে যা ভালো লাগে না তা আ

বন্ধুর সঙ্গে

মার কখনোই সহ্য হয় না। সেই দিক থেকেও কিছু জিদ কাজ করতে লাগলো। এই প্যাচগোচ ওয়ালা সুদকষা আর সরল নিয়েই পড়লাম। ওগুলো শেষ করতেই হবে। আর দেহমনে ও বড় হয়ে যাচ্ছিলাম। একটু একটু করে রান্না ঘরে যাওয়া শুরু করলাম। সৌখিন রান্না শুরু করলাম। আম্মার খুব আপত্তি। পড়াশোনা বাদ দিয়ে রান্নাঘরে কি কাজ? আব্বা বলেন মেয়ে তোমার বড় হচ্ছে। আম্মা এগুলো পাত্তা দেননা। বড় হোক আর ছোট হোক পড়াশোনা আগে।

আমি নীরবে হাসি। বড় বোন, মেঝবোন, শিরীন খালা, শেফালী ফুপু, মিন্টু মামা ও তরু ভাই। তাদের বিশাল দল। গোপন কথা ফুসুরফাসুরে কখনোই আমার স্থান নেই। কারন আমি ছোট, ওদের দলে পড়ি না। এবার? এবার তো আমি বড় হয়ে গেছি, এবার না নিয়ে যাবে কই! কিন্তু খেয়াল করে দেখি

কিশোরী আমি

সে আশার গুড়ে বালি। আমি যত বড় হয়েছি ওরা তারচেয়ে আরো বড় হয়ে গেছে। আরে! আমি কি কখনোই ওদের ধরতে পারবো না? অভিমানী আমি নিজেই গুটিয়ে গেলাম। ভাবতে ভাবতে বুদ্ধি খুঁজে পেলাম। ওরা যেমন আমাকে দলে নেয়নি আমিও ওদের কিছু বলবো না। আমার কোন গোপন কথা ওদের কখনোই বলবো না। কিন্তু মুশকিল হল যে আমার তেমন গোপন কথা নেই। কি আশ্চর্য কথা, ওরা যে এতো ঘুষঘুষ করে এতো কথা পায় কই! এভাবে ভাবতে ভাবতে নিজেই ক্লান্ত হয়ে বুঝলাম যে এই গোপন গল্পের ভান্ডার এটাই একমাত্র বড় হওয়ার প্রাপ্তি নয়। আমার গোপন কথা না থাক আমার আছে হারমোনিয়াম, এক জীবন ভরা গান, আকাশ ভরা সূর্য তারা, ছবি আঁকার রং তুলি, এবং শিশুর মত বিশাল একটি মন। সেগুলো নিয়েই না হয় থাকি। আবার মেতে উঠলাম নিজের জীবন নিয়ে। জীবনে অনেক মানুষ আত্মীয় স্বজন বন্ধু পেয়েছি। কিন্তু ফাইনালি আমি বুঝে নিয়েছি আসলে আমার একান্ত আপন হলাম আমি। অবশ্যই সবার সঙ্গেই মিলেমিশে থাকি আমি কিন্তু দিন শেষে নয় যখন তখনই আমি আমার ভিতরে ঢুকে যাই, ঢুকতে পারি বেরুতে পারি। আমার আমিকে চিনতেই এ জীবন পার করলাম আমি, এই মধ্য বয়সে এসে আমি বুঝি সেই যে বড় হতে চাওয়া কিশোরী আসলে এখনো বড় হতে পারেনি। সবাই আসলে বড় হয় না। হতে চাইলেই পারা যায়না।

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com