ব্যাকফুটে বাংলাদেশ…

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
চট্টগ্রাম টেষ্ট উইকেটের প্রথম আড়াই থেকে তিন দিন ব্যাটসম্যানদের সহায়ক হবে। এমন তথ্য অজিদের কাছে নতুন হলেও টিম বাংলাদেশের কাছে নতুন ছিল না। বাংলাদেশের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের অতি রক্ষনশীল খেলায় উইকেট হারাতে হয়েছে , রানের খাতা বেশি দূর এগিয়ে নেওয়া সম্ভব হয়নি। রক্ষনশীল ব্যাটিংএ প্রথম ইনিংসে সুযোগের ফয়দা নিয়েছেন অজি অফ স্পিনার লায়ন। একাই তুলে নিয়েছেন বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ ৭ উইকেট । বাংলাদেশের রানের গড় ২.৬৯ হলেও অজিদের রানের গড় ৪ এর কাছাকাছি । দুই দলের রানের এই গড় পার্থক্য আর বোলিং ফিল্ডিংএর দূর্বলতা চট্টগ্রাম টেষ্টের দ্বিতীয় দিনের পুরোটাই ছিল অজিদের সাফল্যের কাহিনী।
চট্টগ্রাম টেষ্টের প্রথম দিন শেষে অস্ট্রেলিয়ান সাবেক কিংবদন্তী বোলার শেন ওয়ার্ন তার টুইটারে লিখেছেন, “আবারও কঠিন বিপদের দিকে অজিরা। ভয় পেয়ওনা ছেলেরা , এখন প্রয়োজন কঠোর পরিশ্রমের । “ওয়ার্নার টুইট বার্তায় অভিনন্দনও জানান , অজি অফ স্পিনার নাথান লায়নকে। পর পর তৃতীয় টেষ্ট ক্রিকেটে ৫ উইকেট নেওয়ার জন্য। আজ মঙ্গলবার টেষ্টের দ্বিতীয় দিনে  শুরুটাও তেমন ভাল করতে পারলেন না বাংলাদেশ। মাঠে নেমেই মুশফিক ৬৮ রানের মাথায় লিয়নের বলেই ধরাশায়ী হন। এরপর নাসির ৪৫ রানে ১১ রানে মিরাজ আর তাইজুল ৯ রান করেই প্যাভিলিয়নে ফিরে যান। মধ্যাহ্ন ভোজনের কিছু আগেই ৩০৫ রানে অল আউট হন টাইগার বাহিনী। অজি অফ স্পিনার লিয়ন প্রথম ইনিংসে ৭ উইকেট দখল করেন।
এরপর মধ্যাহ্ন ভোজনের আগে অজিরা ব্যাট করতে নামলে , মাত্র ৫ রানের মাথায়  মুস্তাফিজের দ্বিতীয়  ওভারের তৃতীয় বলেই দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে অজি ওপেনার রেনশোক মুশফিকের অসাধারন ক্যাচে  সাজঘরে ফেরত যাওয়ায়, চাপ মাথায় নিয়েই লাঞ্চ বিরতিতে যায় অস্ট্রেলিয়া।
ভাদ্রের তাল পাঁকা গরমে , মধ্যাহ্ন বিরতির পর অজি অধিনায়ক স্মিথের আগ্রাসী ব্যাটিং ডেভিড ওয়ার্নারের সাথে জুটি ৫০ রানে পৌঁছে যায় ৭০ বলে। এসময় বাংলাদেশ দলের  ফিল্ডিংএ কিছু শৈথিল্য ভাব দেখা যায়। রান আটকে জুটি ভাঙ্গতে বাংলাদেশের টেষ্ট  অধিনায়ক মুশফিক দ্রুত বোলিং পরিবর্তন করেন । মিরাজ , সাকিবের বোলিং জুটি স্মিথ, ওয়ার্নার জুটির রানে আগ্রাসী ভাবটাকে শ্লথ করে দেয়। এতকিছুর পরও ৮১ বলে ব্যাক্তিগত অর্ধশত রান তুলে নেন স্মিথ। স্মিথ-ওয়ার্নারের বড় পার্টনারশিপে ম্যাচে চালকের আসনে ফেরে অজিরা । এমন সময় অধিনায়ক মুশফিক সাকিবের পরিবর্তে বল হাতে তুলে দেন তাইজুলের হাতে। তাইজুলের প্রথম বলেই বোল্ড অজি অধিনায়ক স্মিথ ৫৮ রানে। সাথে ৯৩ রানের স্মিথ , ওয়ার্নারের জুটি ভেঙ্গে যায়।
১১১ রানে ২ উইকেট হারিয়ে চা বিরতি থেকে ফিরে ওয়ার্নার তাঁর ব্যাক্তিগত ২৫তম টেষ্ট অর্ধশত পূর্ন করেন। এরপর তাইজুলের বলে মুমিনুল ওয়ার্নারের ব্যাটে লেগে ওপরে ওঠা বল তালুবন্দি করতে ব্যার্থ হন পাশাপাশি ম্যাচে নিয়ন্ত্রন হারাতে থাকে বাংলাদেশ। ওয়ার্নারকে সাথে রেখে পিটার হ্যান্ডসকম ৭২ বলে ব্যাক্তিগত ৫০ রান তুলে নেন। অজি ব্যাটসম্যানদের ওপর বাংলাদেশ বোলাররা চড়াও হতে না পারায় ওয়ার্নার , পিটার হ্যান্ডসকম জুটি সহজে শতরানের জুটি করে ফেলে দ্বিতীয় দিনেই চালকের আসন দখল করে নেন । মেহেদীর বলে বাংলাদেশের অধিনায়ক উইকেটকিপার মুশফিক ডেভিড ওয়ার্নারকে ব্যাক্তিগত ৭৩ রানের মাথায় সহজ স্টাপিং করতে ব্যার্থ হন। পিটার হ্যান্ডসকম ৬৮* রান আর ডেভিড ওয়ার্নার ৮৮* রানে অপরাজিত থেকে, বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস থেকে ৮০ রান পিছিয়ে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করেন।
ছবি: গুগল

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com