বিছানা গরম করাই যখন পেশা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিছানা গরম করা কথাটাই একটু অন্যরকম। তারওপর যদি এর সঙ্গে জড়িত হন কোন নারী তাহলে অনেকই যে নড়েচড়ে বসবেন তাতে কোন সন্দেহ নেই। কিন্তু পাঠক যা ভাবছেন বিষয়টা সেরকম কিছু নয়। মাত্র ২১ বছর বয়সী লাস্যময়ী এক রুশ তরুণী ভিক্টোরিয়া ইভাচিওভা এক অভিনব কাজ শুরু করেছেন তার নিজের দেশে। বিষয়টা একেবারেই প্রফেশনাল। এই সুন্দরী আক্ষরিক অর্থেই এখন বিছানা গরম করছেন মোটা পারিশ্রমিকের বিনিময়ে।

ভিক্টোরিয়ার এই নতুন কোম্পানীর পেছনে ইতিমধ্যে লাইন ধরে দাঁড়িয়ে পড়েছেন খদ্দেররা। বলা বাহুল্য, এদের অধিকাংশই অবিবাহিত পুরুষ। ভিক্টোরিয়া জানান, তিনি এক রাতে কাজের জন্য প্রায় ৪৯০০ রুব‌্ল নেন। এই কাজটা তার কাছে ভীষণ ইতিবাচক।

ভিক্টোরিয়া ইভাচিওভা

রাশিয়ার তাপমাত্রা শীতকালে নেমে যায় মাইনাস ৩০ ডিগ্রির নীচে। এমন অবস্থায় ঠান্ডা বিছানায় শুতে কারই বা মন চায়?‌ এই সমস্যার সমাধানে সম্প্রতি একটি ওয়েবসাইট খুলেছেন ভিক্টোরিয়া। তার ওয়েবসাইটে গিয়ে সময় ও স্থান জানিয়ে দিলে মক্কেলের বাড়িতে পৌঁছে যান তিনি। তার পর এক ঘণ্টা লেপ–কম্বল মুড়ি দিয়ে শুয়ে পড়েন ক্লায়েন্টের বিছানায়। তার শরীরের উত্তাপে ওই বিছানাটি গরম হয়ে যায়।

এই অভিনব কাজের চাপ সামলানোর জন্য ভিক্টোরিয়া আরও কয়েকজন নারীকে নিয়ে একটি দল গড়ে তুলেছেন। এরা এখন একাধিক ক্লায়েন্টের চাহিদা সামাল দিতে ব্যস্ত। কাজটি করতে গিয়ে ভিক্টোরিয়া কিছু শর্ত জুড়ে দিয়েছেন তার মক্কেলদের জন্য। এসব শর্তের মধ্যে অন্যতম, কাজের সময় তাঁকে কেউ ছুঁতে পারবেন না এবং কোনও রকম যৌন ইঙ্গিতপূর্ণ কথাও বলা যাবে না। তবে কাজ করার সময় শোবার ঘরে ঘরে মক্কেল উপস্থিত থাকতে পারবেন। ওই সময় ভিক্টোরিয়া অথবা তার সঙ্গীদের সঙ্গে নির্দোষ গল্পও করা যাবে। কাজের সময় ভিক্টোরিয়ার সঙ্গে থাকেন তাঁর নিরাপত্তাকর্মীরা। অসুবিধায় পড়লে ডাক দিলেই উপস্থিত হন এই ‘বাউন্সার’রা। ভিক্টোরিয়ার হাতের জরুরী অ্যালার্ম বেজে উঠলেই পাশের ঘর থেকে তারা ঢুকে পড়বেন শোবার ঘরে, সামাল দেবেন বেসামাল মক্কেলকে।

টাকা নেয়ার পর ভিক্টোরিয়া মক্কেলের ঘুমের সময়ের এক ঘন্টা আগে হাজির হয়ে যান ওই বাড়িতে। তারপর সম্পূর্ণ বিবসনা হয়ে লেপ গায়ে শুয়ে পড়েন মক্কেলের শীতল বিছানায়। ব্যাস, তারপর শুরু হয়ে যায় তার বিছানা গরম করার প্রক্রিয়া। এসময় ভিক্টোরিয়া তার মক্কেলদের সঙ্গে নানা বিষয়ে গল্প করেন। তারা অনেকে ভিক্টোরিয়ার সঙ্গে তাদের জীবনের নানা সমস্যার কথাও আলোচনা করে। অনেকে পরদিন তাকে ফোন করে ভালো ঘুম হওয়ার কথাও জানিয়েছে।

এই মুহূর্তে ১০ জন মক্কেল রয়েছেন ভিক্টোরিয়ার। এঁরা সকলেই ‘‌সিঙ্গল’‌ এবং পুরুষ। তবে মহিলাদের জন্যও বিছানা গরম করতে আপত্তি নেই তাঁর।‌‌‌‌ মহিলারা চাইলেই ভিক্টোরিয়ার এই বিছানা গরমের সহায়তা তাদের কাছে পৌঁছে যাবে। কারণ ভিক্টোরিয়া সবাইকে সাহায্য করতে চান।

বিনোদন প্রতিবেদক

তথ্য ছবিঃ ডেইলি মিরর

 

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com