বাংলাদেশ-শ্রীলংকা টেস্ট ম্যাচটা পাতানো!

  •  
  •  
  •  
  •  
  • 0
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আহসান শামীমঃ এশিয়ার দেশগুলোর ক্রিকেটাররা খারাপ খেললে বা  ম্যাচ হারলে ক্রিকেটারদের মুণ্ডুপাত সবচাইতে বেশি করে ভারতীয় মিডিয়া। সম্প্রতি শ্রীলঙ্কান মিডিয়াও এই কাজে কোনো অংশে কম যাচ্ছে না। বাংলাদেশের কাছে টেস্ট হারের ধারাবাহিকতায় প্রথম ওয়ানডেতে হার কোনোমতেই মেনে নিতে পারছে না তারা। চলছে তাদের  ক্রিকেটারদের কঠোর সমালোচনা আর ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ। কয়েকদিন আগে দক্ষিণ আফ্রিকায় গিয়ে টানা হারের পরও এত সমালোচনা হয়নি; যতটা হচ্ছে বাংলাদেশের কাছে হারার পর। বাংলাদেশকে তারা এখনও শক্তিশালী হিসেবে ভাবতে নারাজ। যদিও  অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ২০১৫ বিশ্বকাপের পর ওয়ানডে ক্রিকেটে জয়-পরাজয়ের অনুপাতে এখন বিশ্বের দ্বিতীয়  সেরা দল বাংলাদেশ। এই সময়ের মধ্যে  দলগুলোর  ওয়ানডে খেলার ওপর ভিত্তি করেই এই পরিসংখ্যান। আর সেই পরিসংখ্যানে ভারত, পাকিস্তান, ইংল্যান্ড  এমনকি বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ারও ওপরে বাংলাদেশ! বাংলাদেশের ওপরে আছে  একমাত্র দক্ষিণ আফ্রিকা।

দ্য আইল্যান্ড পত্রিকা আজ শিরোনাম করেছে, বাংলাদেশের কাছে যন্ত্রণাদায়ক হার। প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে, “পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যাওয়া একটি দল যখন বিশ্বের এক নম্বর দলের বিপক্ষে কঠিন কন্ডিশনে খেলে, তখন বাজে সময়ের মধ্য দিয়ে যাওয়াটা তাও মেনে নেওয়া যায়। কিন্তু নবীনতম টেস্ট খেলুড়ে দেশ বাংলাদেশের বিপক্ষে এই হার মেনে নেওয়া সত্যিই খুব কঠিন। “

কলোম্বে বাংলাদেশের শততম টেষ্ট নিয়ে নাকি তদন্তে নেমেছে আইসিসির দুর্নীতি বিরোধী ইউনিট।
শ্রীলংকার দ্য সানডে টাইমস নামে একটি পত্রিকায় খবর ছাপা হয়েছে, লঙ্কানদের এক খেলোয়াড়কে আইসিসির অ্যান্টি করাপশন ইউনিট প্রশ্ন করেছে ম্যাচ পাতানো নিয়ে। প্রতিবেদনে বলা হয়, শ্রীলঙ্কা টেস্ট দলের এক সদস্যের কাছে যুক্তরাষ্ট্রে থাকা এক ক্রিকেটভক্তের একটি ফোন কল আসে। সেই ক্রিকেটারের কাছে আসা ওই ফোন কলটির সূত্র ধরেই তদন্ত করাছে আইসিসির দুর্নীতি বিরোধী ইউনিট। লঙ্কান ওই টেস্ট ক্রিকেটারকে জিজ্ঞাসাবাদ সম্পর্কে আইসিসির তদন্ত দলের সদস্য লক্ষণ ডি সিলভা জানান, তারা একজন লঙ্কান ক্রিকেটারকে ডেকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে আসা ফোন কলের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন।সিলভা বলেন,‘এখনও আপত্তিকর কিছু পাওয়া যায়নি। কিন্তু আমরা বিস্তারিত জানার চেষ্টা করছি, ফোনটি কে করেছিল, তার পরিচয় জানার । সেখানে কোনো প্রকার আর্থিক লেনদেন বা আরও বড় কোনো ঘটনা ঘটেছে কিনা তাও আমরা খতিয়ে দেখছি।’এছারাও সিলভা আরও যোগ করেন, ‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শ্রীলঙ্কানদের দুর্নীতি ঘটনা একেবারেই কম। তবে আমরা জানি কিছু মানুষ বল বাই বল জুয়া খেলে, এমন কিছু লোককে সম্প্রতি স্টেডিয়াম থেকে বের করে দেয়া হয়েছিল, কিন্তু তাদের সংখ্যা বাড়ছে’।

বাংলাদেশের শততম জয়কে প্রশ্নবিদ্ধ করতে এমন প্রয়াস ।টেস্ট সিরিজের পর ওয়ানডে সিরিজেও টাইগারদের সামনে দাঁড়াতে পারছে না লঙ্কানরা। প্রথম ওয়ানডেতে স্বাগতিকরা ৯০ রানের হার নিয়ে মাঠ ছেড়েছে।  আগামী ২৮ ও ১ লা এপ্রিল বাংলাদেশের বিপক্ষে লঙ্কানদের পরাজয় হলে ২০১৯ সালের বিশ্বকাপের চুড়ান্ত পর্বে খেলার আগে তাদের বাছাই পর্বে খেলতে হবে ।

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com