বন্ধুদর্শণে প্রথমবারের মতো বিলাত…

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ফেইসবুক এর গরম আড্ডা চালাতে পারেন প্রাণের বাংলার পাতায়। আমারা তো চাই আপনারা সকাল সন্ধ্যা তুমুল তর্কে ভরিয়ে তুলুন আমাদের ফেইসবুক বিভাগ । আমারা এই বিভাগে ফেইসবুক এ প্রকাশিত বিভিন্ন আলোচিত পোস্ট শেয়ার করবো । আপানারাও সরাসরি লিখতে পারেন এই বিভাগে । প্রকাশ করতে পারেন আপনাদের তীব্র প্রতিক্রিয়া।

শাকুর মজিদ

তখন ক্যাডেট কলেজে চলে গেছি। আমার আগের স্কুলের বন্ধুদের ফেলে নতুন বন্ধু হয়েছে। ছুটিতে গ্রামে গেলে তাদের সঙ্গে দেখা করি। কারো বাড়ি আমি যাই, কেউ আমার বাড়ি আসে। কিন্তু টের পাই, আমার উচ্চারনে শুদ্ধ বাংলা চলে আসে। হুট করে বলে ফেলি সরি, এক্সকিউজ মি এসব শব্দ । এগুলো আমার পুরনো বন্ধুদের কাছে নতুন। তারা কেমন যেন অবাক হয়ে তাকায় আমার দিকে।

ক্যাডেট কলেজে যাবার আগে ব্যাডমিন্টন খেলতাম। কলেজে টেবিল টেনিস, লন টেনিস আছে, ব্যাডমিন্টন নাই। এটা শোনার পর আমার পাশের পাড়ার এক বন্ধু এক বিকেলে নতুন কর্ক আর দুইটা র‍্যাকেট নিয়ে চলে আসে।

লন্ডনে বন্ধু শোয়েবের সঙ্গে

বাড়ির পাশে একটা কোর্ট আছে, সেখানে জাল টাঙানো থাকে। মাঝে মাঝে বড়োরা খেলে। বড়োরা আসার আগে আমরা খেলতে নেমে যাই। সিঙ্গেল গেম।

ও খুব ভালো খেলে। আমিও মোটামুটি ভালো। বাট, ও আমার চেয়ে ভালো, রেগুলার খেলে। ৭-৮ মাস আমার খেলা হয়নি। আমি স্ম্যাশ করলে হয় নেটে লাগে, নয় মাঠের বাইরে। প্রথম ম্যাচ। আমার ৩, ওর ১২। আর দুই-তিনটা সার্ভিস হলেই সে যিতে যাবে। কিন্তু আমি দেখি সে ফাউল খেলছে। নেটের উপর সহজ বল তুলে দিচ্ছে। আমি স্প্যাশ করি, সে তুলতে গিয়ে বাইরে ফেলে দেয়। খেলার ফলাফল, ওর ১৩, আমার ১৫। আমাকে সে জিতিয়ে দেয়।

পুলিশের কাছে গেলাম। পুলিশ বললো, যদি ট্রানজিট ভিসা নিতে পারো, তবে বেরিয়েই তোমার বন্ধুকে পেয়ে যাবে। সে গেটের বাইরেই আছে।
আমি ইমিগ্রেশনের স্পেশাল সার্ভিস কাউন্টারে গিয়ে এক মহিলা অফিসারকে বললাম, আমার এক বাল্যবন্ধু গেটের বাইরে আছে। তাঁকে ১৮ বছর দেখি না। আমাকে ট্রানজিট ভিসা দিলে তাঁকে দেখেই আবা ফেরত আসবো। দুবাইগামী প্লেন ছাড়তে আমার আরো ৪ ঘন্টা দেরী।

ভদ্রমহিলা অতীব হৃদয়বান। আমার পাসপোর্টে ২৪ ঘন্টার একটা ট্রানজিট ভিসার সীল মেরে কাছাকাছি কোথায় ফাস্টফুডের দোকান আছে তার ঠিকানা দিয়ে বললেন, তোমার বন্ধুর সঙ্গে ওখানে বসেই গল্প করো, শহরে গেলে জ্যামে আটকা পড়ে ফ্লাইট মিস করতে পারো। আমি তাঁকে ধন্যাবাদ দিয়ে গেট থেকে বেরিয়েই দেখি সে দাঁড়িয়ে আছে। এই আমার বন্ধুদর্শণে প্রথমবারের মতো বিলাত দেখা।

ছবি: লেখক

 

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com