প্রিয়ব্যথাকে সঙ্গে নিয়েই বেঁচে থাকা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সজীব খন্দকার

( সুইজারল্যান্ড থেকে): স্রষ্টা মানুষকে এক অদ্ভুত ক্ষমতা দিয়েছেন তা হচ্ছে ভুলে থাকা। এই যে আমরা কতো প্রিয়জনকে হারাই, এরপর ক্রমশ তাঁদের ভুলে যাই, বেঁচে থাকার জন্যই হয়তো এমনটা হয়, কিন্তু যে মানুষটি বেঁচে আছে অথচ জীবন থেকে অনেক অনেক দূরে! তাঁকে! তাঁকে কি এতো সহজে ভোলা যায়! যাঁর সঙ্গে কথা বলা সূর্য ডোবা-ওঠার মতো নিত্য-নৈমিত্তিক ব্যাপার ছিলো, তাঁকে কি এতো সহজে ভোলা যায় ! তাঁকে মনে পড়ে, কারণে-অকারণে মনে পড়ে । ট্রেন দিয়ে যেতে যেতে বাইরে তাকিয়ে দেখতে গিয়ে হঠাৎ তাঁকে মনে পড়ে। তাঁকে মনে পড়ে মন খারাপ করা বৃষ্টি হতে দেখে। এমনি কোনো বাদলমুখর দিনে মুঠোফোনটি হয়তো বেজে উঠতো কোনোদিন আর ওপ্রান্ত থেকে পাগলাটে আবদার, ” চলো বৃষ্টিতে ভিজি”, এখন বৃষ্টি হয় ঠিকই কিন্তু বৃষ্টিতে ভেজা হয় না, ভেজা হয় চাপা কান্নায় । বৃষ্টি ভেজা প্রেয়সীকে হয়তো সে বলেছিলো, ভেজা তুমি ভীষণ সুন্দর! কান্না ভেজা প্রেয়সীটি কেমন তা জানা হয়নি দুজনের কারোরই। তাঁকে মনে পড়ে, মনে পড়ে চোখে কাজল দেয়া কাউকে দেখে।চোখে কাজল দিলে তাঁকে ভীষণ সুন্দর লাগতো, আচ্ছা সে কি এখনো চোখে কাজল দেয়! জানতে ইচ্ছে করে। প্রিয় মানুষটিকে সিগারেট খেতে দেখে বলেছিলো, এতো সিগারেট খেয়োনা, মারা যাবে তুমি । মানুষটি এখনো সিগারেট খায়, আগের চেয়ে অনেক বেশি কিন্তু কেউ বলেনা, তুমি সিগারেট খেয়োনা প্লিজ । সিগারেটের প্রতিটি ধোঁয়ায় তাঁকে মনে পড়ে! এভাবেই জীবন্মৃত মানুষটিকে বারবার মনে পড়ে হয়তো কোনো একদিন কোনো বাসস্টপে, কিংবা কোনো কফিশপে কিংবা কোনো ভীড়ের মাঝে দেখা হয়ে যাবে আর বলা হবে ” ভালো আছো তো?”। হয়তো কিছুই বলা হবেনা! মানুষ বড় অদ্ভুত! কিছু জিনিস ভুলতে চায়না, ইচ্ছে করেই মনের মাঝে জিইয়ে রেখে কষ্ট পেতে ভালোবাসে! আর ভুলবেই বা কি করে! এই প্রিয়ব্যথাকে সঙ্গে নিয়েই যে বেঁচে থাকে!

ছবি: সৌজন্যে শাহানা হুদা

 

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com