প্রামাণ্যচিত্র ‘স্বাধীনতার ডাক’ প্রদর্শনী

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে ডাকটিকেটের ভূমিকা নিয়ে নাসরিন ইসলাম পরিচালিত এবং প্রযোজিত প্রামাণ্যচিত্র ‘স্বাধীনতার ডাক’ (The Postage Stamps for Independence) এর প্রদর্শনী আগামী ৯ই ফেব্রুয়ারী সঙ্গীত ও নৃত্যকলা মিলনায়তন, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে প্রদর্শিত হবে। প্রদর্শনীর পর প্রশ্নোত্তর পর্বে দর্শকদেও সাথে নির্মাতা সরাসরি অংশ নেবেন। এই আয়োজনটি সবার জন্য উন্মুক্ত।অনুষ্ঠানে সম্মানতি অতথিি হসিবেে উপস্থতি থকবিনে কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন, নাট্যজন ও চলচ্চিত্র নির্মাতা জনাব নাসিরুদ্দীন ইউসুফ বাচ্চু, মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব শম্পা রেজা, ফাহিম রেজা নূর, সভাপতি, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি নিউইয়র্ক, জনাব মোহাম্মদ মোমিনুল হক, সচিব, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড, শ্রীযুক্ত সুধাংশু শেখর ভদ্র, মহাপরিচালক, ডাক অধিদপ্তর, বাংলাদেশ ডাক বিভাগ।
১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ চলাকালীন জনাব বিমান মল্লিকের নকসায় মুজিবনগর সরকারের উদ্যোগে কোলকাতা ্এবং লন্ডন থেকে ৮টি স্বারক ডাকটিকিট প্রকাশ করা হয়। এই ডাকটিকিটগুলো বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্বপক্ষে বিশ^জনমত আদায়ের লক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিল। নির্মাতা এই বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য উপাত্য এবং দুর্লভ ফুটেজ সংগ্রহ কওে ৪০ মিনিট দৈর্ঘ্যরে এই প্রামাণ্যচিত্রটিতে মুক্তিযুদ্ধের এক গৌরব উজ্জ্বল ইতিহাস রূপায়ণের প্রয়াস পেয়েছেন।
এই প্রামাণ্যচত্রিটরি নর্মিাতা নাসরিন ইসলাম একজন স্বাধীন প্রামাণ্যচিত্র নির্মাতা। পাশাপাশি তিনি একজন সংগীত শিল্পী। ভারতের গুজরাটের মহারাজা সায়াজিরাও বিশ^বিদ্যালয় থেকে হিন্দুস্তানী শাস্ত্রীয় সঙ্গীতে ¯œাতক এবং ¯œাতকোত্তর শেষ করে পাড়ি জমান সুদূর যুক্তরাষ্ট্রে। ‘স্বাধীনতার ডাক’ প্রামাণ্যচিত্রটি তাঁর প্রথম নির্মাণ। নিউইয়র্কভিত্তিক বাংলা টেলিভিশনে প্রায় পাঁচ বছর তিনি অনুষ্ঠান প্রযোজক হিসেবে কাজ করেছেন। বর্তমানে তিনি প্রামাণ্যচিত্র নির্মানের পাশাপাশি জাহাঙ্গীরনগর বিশ^বিদ্যালয় থেকে ‘আব্বসউদ্দীন ও ভাওয়াইয়া’ বিষয়ে পিএইচডি গবেষণা সমপন্ন করছেন।

গত বছর ১২ই এপ্রিল আগারগাঁওয়ের মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর মিলানায়তনে প্রামাণ্য”িত্রটি উদ্বোধনী প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। ২০ এপ্রিল মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর আয়োজিত ৭ম আন্তর্জাতিক মুক্তি ও মানবাধিকার প্রামাণ্যচিত্র উৎসব ২০১৯-এ প্রামাণ্যচিত্রটি প্রদর্শীত হয়। ২৯ জুলাই এডওয়ার্ডকেনেডি সেন্টারে এবং ৯ আগস্ট আইসিসিআর এবং ফোরাম ফর ফিল্ম স্টাডিজ এন্ড অ্যালায়েড আর্টস-এর যৌথ আয়োজনে প্রামাণ্যচিত্রটি প্রদর্শীত হয়। ১৮ নভেম্বর এশিয়াটিক সোসাইটি কোলকাতায় প্রামাণ্যচিত্রটি প্রদর্শীত হয়। এছাড়াও গত ১৪ই ডিসেম্বর প্রামাণ্যচিত্রটি নিউইয়র্কে প্রদর্শীত হয়। এবছর প্রামাণ্যচিত্রটি ঢাকা আন্তর্জাতিক ফিল্ম ফেস্টিবল থেকে প্রদর্শীত হয়। এছাড়াও যুক্তরাজ্যের লন্ডন শহরের নেহেরু সেন্টারে প্রামাণ্যচিত্রটি প্রদর্শণের আয়োজন চলছে।
বিনোদন প্রতিবেদক

 

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com