পাঁচে প্যামেলা…

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শরীর, শরীর এবং শরীর; অভিনেত্রী প্যামেলা এন্ডারসন সম্পর্কে এটাই কি শেষ কথা? ৫২ বছর বয়সেও আগুন ছড়ানো বে ওয়াচ খ্যাত প্যামেলার শরীর এমনটাই বলে। কিন্তু এবার তার পঞ্চম বর অবশ্য এ কথা স্বীকার করেন না। তার কথা হচ্ছে, প্যামেলা অনেকদিন ধরে শো-বিজে থাকলেও তার অভিনয়  প্রতিভার সিকি ভাগও ব্যবহার করতে পারেনি পরিচালকরা।

গত সপ্তাহে বেশ একটু গোপনেই প্যামেলা আবার বিয়ে করলেন চলচ্চিত্র প্রযোজক জনকে। জন ‘এ স্টার ইজ বর্ন’ ছবি ছাড়াও হলিউডে বেশ কয়েকটি সফল ছবির প্রযোজনা করেছেন।

প্যামেলা আর জনের গাঁটছড়া বাঁধার কথাটা অবশ্য সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ করে দিয়েছেন প্যামেলার বড় ছেলে ব্র্যান্ডন থমাস লী। মায়ের এই পঞ্চমবার বিয়ে করাকে খুবই ইতিবাচক ঘটনা হিসেবে দেখছেন তিনি। এই যুগল এখন থেকে ঠিক ৩৫ বছর আগে প্রথম ডেট করেছিলেন।

প্যামেলার এই বিয়েটা অবশ্য গণমাধ্যম আর তার ভক্তদের জন্য বেশ বিষ্ময়কর। কারণ ২০১৭ সাল থেকে প্যামেলার নৌকা ভিড়েছিলো ফরাসী ফুটবলার আডিল রামির ঘাটে। অবশ্য ২০১৯ সালের জুন মাসে হুট করেই তাদের এই সম্পর্ক ভেঙ্গে যায়। আর তারপরেই এই বিয়ে।

প্যামেলার নতুন স্বামী জনও অবশ্য বিয়ের দৌড়ে প্যামেলার থেকে পিছিয়ে নেই। তিনিও এর আগে পাঁচবার বিয়ে করেছিলেন; ৪ সন্তানের জনকও তিনি। ৭৪ বছরে পৌঁছানো জন প্যামেলার প্রণয়ে আজও হাবুডুবু খান বলে নিজেই মিডিয়ার কাছে স্বীকার করেছেন। তিনি মন্তব্য করেছেন, প্যামেলার চোখ আজও আমাকে অনেক কথা বলে। তা না হলে আমি প্রেমে পড়ে থাকতাম না। এদিকে প্যামেলাও তার নতুন স্বামীকে নিয়ে কবিতা লিখে ফেলেছেন। জনকে তিনি হলিউডের প্রকৃত পাজি লোক বলে আখ্যাও দিয়েছেন।

প্যামেলা এন্ডারসন প্রথমবার বিয়ে করেন ১৯৯৫ সালে।

বিনোদন ডেস্ক
তথ্যসূত্রঃ মেট্রো
ছবিঃ গুগল

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com