দেশ ছাড়িয়ে আককাস মাহমুদ

  •  
  •  
  •  
  •  
  • 0
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আককাস মাহমুদ, কে যেন? ৪০০ নিউ ইস্কাটনের আককাস মাহমুদ। আরো একটু খোলাসা করে বলি, এ শহরের অনেক কিছু জানা, স্টুডিও পদ্মা’র আককাস মাহমুদ, তাকে ‘উইকি লাভস মনুমেন্টস’ আলোকচিত্র প্রতিযোগিতায় বিচারক করা হয়েছে।

আন্তর্জাতিক সীমানায় এমন দায়িত্ব পেয়ে কেমন লাগছে?এমন প্রশ্ন করতেই কান পর্যন্ত হাসি ছড়িয়ে  মিস্টার মাহমুদ বললেন, নারকেল পাকলে ঝুনা হয়, আর ফটোগ্রাফার পাকলে বিচারক হয়।

জানা গেলো, বাংলাদেশ ছাড়াও যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, ডেনমার্ক ও সুইডেনের একজন করে বিশিষ্ট আলোকচিত্রি থাকছেন এই জুরি বোর্ডে। প্রথমিক রাউন্ডে ৫৫৫টি ছবির বিচার কাজ শেষ করেছেন মাহমুদ। পরের রাউন্ডে সর্বোচ্চ পয়েন্ট প্রাপ্ত ১০০ ফটোগ্রাফ নিয়ে বিচারের আসনে বসবেন তিনি। সেখান থেকেই বাছাই করা হবে সেরা ১০টি। আর প্রতিযোগিতা নিয়ে একটি অনিবার্য তথ্য হলো-  এবারই প্রথম দেশের প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনাগুলোর আলোকচিত্র অংশগ্রহণ করছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনার তালিকা থেকে যেকোনো সময় তোলা, যেকোনো স্থাপনার ছবি সেপ্টেম্বর মাসজুড়ে আপলোড করেছেন প্রতিযোগীরা।

২০১০ সালে শুরু হওয়া এই প্রতিযোগিতায় এখন পর্যন্ত বিভিন্ন দেশের স্থাপনার ১৪ লাখ ৬৯ হাজার ছবি যুক্ত হয়েছে।২০১১ সালে এটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় ছবি প্রতিযোগিতা হিসেবে গিনেজ বুকে স্থান করে নেয়।

আর আককাস মাহমুদ মূলত ছবির সঙ্গে জড়িয়ে থাকলেও ব্যস্ত থাকেন নিজের বাণিজ্য আর আরও অনেক কিছুর সঙ্গেই। ভীষণ আড্ডাঅন্তপ্রাণ মানুষ তিনি।

রুদ্রাক্ষ রহমান

 

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com