টস জিতেও ব্যাটিং না নেওয়ার খেসারত এখন সুস্পষ্ট

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আহসান শামীমঃ স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচ দক্ষিণ আফ্রিকার দেওয়া ৪৯৭ রানের লক্ষে এখন ব্যাটিং করছে মুশফিকরা। ২য় দিন শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩ উইকেট হারিয়ে ১২৭ রান।ক্রিজে মুমিনুল ২৮ আর তামিম ২২ রানে অপরাজিত আছেন। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ দল দক্ষিন আফ্রিকার চেয়ে ৩৫০ রানে পিছিয়ে আছে।

এলগারের এক রানের আক্ষেপ।রিভিউ না নিয়ে মুশফিকের সুযোগ হাতছাড়া।এক ওভারেই তিন মাইলফলকে এলগার-আমলা।এলগার-আমলার জুটির ডাবল সেঞ্চুরি।বাংলাদেশের নির্জীব বোলিংয়ের খেসারত , এসব কিছু নিয়ে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রথম টেষ্টের দ্বিতীয় দিনটাও নিজেদের দখলে রেখে দিল দক্ষিন আফ্রিকা। পচেফস্ট্রুম টেস্টে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ডিন এলগার এবং হাশিম আমলার জোড়া শতকে ভর করে তিন উইকেটে ৪৯৬ রানে ইনিংস ঘোষণা করে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা।

ভাগ্য পরিহাস না করলে হয়তো অভিষেকে সেঞ্চুরি পেতেও পারতেন ৯৭ রানে রান আউট হওয়া এইডেন মার্করাম।দ্বিতীয় দিনে এক উইকেটে দলীয় ৪১১ রান নিয়ে লাঞ্চের পর ব্যাট করতে নামেন দুই সেঞ্চুরিয়ান আমলা ও এলগার। বিরতির ঠিক পরের ওভারেই প্রতিপক্ষের ভুলে সাফল্য মিলে বাংলাদেশের।শফিউলের অফ স্ট্যাম্পের বেশ বাইরের বলে রান আদায় করে নেয়ার লোভে ব্যাট চালিয়ে পয়েন্টে থাকা মিরাজের হাতে ক্যাচ তোলেন ১৩৭ রান করা আমলা। সেই সাথে সমাপ্তি ঘটে আমলা,এলগারের গড়া ডাবল সেঞ্চুরি পার্টনারশিপের।ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ১ রান দূরে থেকে মমিনুলকে ক্যাচ দিয়ে এক রাশ হতাশা নিয়ে সাজঘরে ফিরে যান প্রোটিয়া ওপেনার এলগার। প্রোটিয়াদের স্কোর তখন তিন উইকেটে ৪৪৮ রান।

জবাবে চা পান বিরতির পর ব্যাটিংয়ে নেমে টাইগারদের হয়ে ইনিংস শুরু করেন দুই ওপেনার ইমরুল কায়েস ও লিটন দাস। খুব বেশীক্ষণ টিকতে পারেননি ইমরুল।দলীয় ১৬ রানে কাগিসো রাবাদার বাউন্সি বলে মার্করামের হাতে ক্যাচ দিয়ে ব্যক্তিগত ৭ রানে সাজঘরে ফেরেন ইমরুল কায়েস। তারপর লিটন দাসের সঙ্গে যোগ দেন মমিনুল হক।টাইগারদের হয়ে ওয়ান ডাউনে নামেন মমিনুল। ইনিংসের ১১ তম ওভারের দ্বিতীয় বলে ব্যক্তিগত ২৫ রানে মরনে মরকেলের বলে স্লিপে দাঁড়ানো হাসিম আমলার হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হয়েছেন লিটন দাস। তৃতীয় উইকেট জুটিতে ৬১ বলে ৫০ রানের জুটি গড়েন মুশফিক-মমিনুল। টাইগারদের দলীয় সংগ্রহ ১০০ রান পার হয় ২২ তম ওভারের তৃতীয় বলে। এরপর ২৬ তম ওভারের প্রথম বলে কেশব মহারাজের বলে এইডেন মার্করামের হাতে ক্যাচ দিয়ে ব্যক্তিগত ৪৪ রানে অধিনায়ক মুশফিক সাজঘরে ফিরলে আবারও চাপে পড়ে টাইগাররা।

মুশফিক ফিরে গেলে মমিনুলের সাথে ক্রিজে যোগ দেন তামিম ইকবাল। দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসের শেষ ৪৯ মিনিট ওপেনার তামিম ইকবাল মাঠে না থাকায় বাংলাদেশের ইনিংসের ৪৯ মিনিট অতিবাহিত হওয়ার আগ পর্যন্ত ব্যাটিংয়ে নামতে পারেননি তামিম।টস জিতেও ব্যাটিং না নেওয়ার খেসারত এখন সুস্পষ্ট ।

ছবিঃ ইএসপিএন

 

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com