গায়ক হতে চেয়েছিলেন কাজুগো ইশিগুরো

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

তরুণ বয়সে গায়ক ও গীতিকার হতে চেয়েছিলেন কাজুগো ইশিগুরো। ফোক গানের প্রতি তাঁর ঝোঁকও ছিল। কিন্তু গায়ক হওয়া তাঁর নিয়তির পৃষ্ঠায় লেখা ছিলো না। গান লিখতে লিখতে কাজুগো চলে এলেন কথা সাহিত্যের জগতে। আর ৬২ বছরের জীবনে মাত্র আটটি বই লিখে এই ব্রিটিশ সাহিত্যিক জয় করলেন ২০১৭ সালের নোবেল সাহিত্য পুরস্কার।

বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় দুপুর ১টায় সাহিত্যে ২০১৭ সালের বিজয়ী হিসেবে তাঁর নাম ঘোষণা করে রয়্যাল সুইডিশ একাডেমি৷জগতের সাথে মানুষের সম্পর্কের গভীরতর সত্যকে তুমুল আবেগের সঙ্গে উপস্থাপন তাঁর লেখার অন্যতম দিক বলে উল্লেখ করেছে নোবেল কর্তৃপক্ষ৷

জাপানি বংশোদ্ভূত বৃটিশ লেখক কাজুও ইশিগুরো (Kazuo Ishiguro) ১৯৫৪ সালে 8 নভেম্বর জাপানের নাগাসাকিতে জন্মগ্রহণ করেন এবং ১৯৬০ সালে পরিবারের সঙ্গে ইংল্যান্ডে চলে আসেন। তিনি ইংরেজি এবং দর্শনশাস্ত্রে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি এবং পূর্ব এঙ্গেলিয়ার সৃজনশীল সাহিত্য মাস্টার্স ডিগ্রী লাভ করেন। ইশিগুরো ‘দ্য রিমেইনস অব দ্য ডে’ বইটির জন্য ১৯৮৯ সালে ম্যান বুকার পুরস্কার পান। ইশিগুরো এখন পর্যন্ত যে ৮টি বই লিখেছেন তা ৪০টি ভাষায় অনুদিত হয়েছে। তার বিখ্যাত উপন্যাস দ্য রিমেইনস অব দ্য ডে ও নেভার লেট মি গো অবলম্বনে জনপ্রিয় সিনেমা নির্মিত হয়েছে।

নিয়ম অনুযায়ী, আগামী ১০ ডিসেম্বর স্টকহোমে তাঁর হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে তুলে দেয়া হবে পুরস্কারের ৯০ লাখ ক্রোনার৷

গত বছর নোবেল পেয়েছেন কিংবদন্তি গায়ক ও গীতিকার বব ডিলান৷ গীতিকার হিসেবে তিনিই প্রথম সাহিত্যে নোবেল পেলেন৷ এর আগের বছর সাহিত্যে নোবেল পান বেলারুশের সাংবাদিক এবং লেখিকা সিয়েৎলানা অ্যালেক্সেভিচ৷ পরপর দু’বছর প্রথাগত সাহিত্যের বাইরে দুজন পুরস্কার জেতায় এ বছরও অনেকের জল্পনায় ছিল বিষয়টি৷ তেমন কিছু না হলেও, পছন্দের শীর্ষে থাকা জাপানের হারুকি মুরাকামি ও কেনিয়ার এনগুগি ওয়া থিওংকে পেছনে ফেলে এ পুরস্কার জেতেন কাজুও ইশিগুরো৷

১৯০১ থেকে এ পর্যন্ত মোট ১১০ জন সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পেলেন, যার মধ্যে ১৪ জন নারী৷ সাহিত্যে যৌথভাবে নোবেল দেয়া হয়েছে ২ বার ৷ ১৯১৪, ১৯১৮, ১৯৩৫, ১৯৪০, ১৯৪১, ১৯৪২ ও ১৯৪৩ সালে (যোগ্য কাউকে পাওয়া যায়নি উল্লেখ করে) সাহিত্যে নোবেল দেয়া হয়নি৷ নোবেল পুরস্কারের ইতিহাসে দুজন সাহিত্যিক নোবেল প্রত্যাখান করেছেন-  বরিস পাস্তেরনাক ও জাঁ পল সার্ত্রে।

সাহিত্য ডেস্ক

তথ্য ও ছবিঃ নিউ ইয়র্ক টাইমস

 

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com