কোনো এক নিশীথে…

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ফেইসবুক এর গরম আড্ডা চালাতে পারেন প্রাণের বাংলার পাতায়। আমারা তো চাই আপনারা সকাল সন্ধ্যা তুমুল তর্কে ভরিয়ে তুলুন আমাদের ফেইসবুক বিভাগ । আমারা এই বিভাগে ফেইসবুক এ প্রকাশিত বিভিন্ন আলোচিত পোস্ট শেয়ার করবো । আপানারাও সরাসরি লিখতে পারেন এই বিভাগে । প্রকাশ করতে পারেন আপনাদের তীব্র প্রতিক্রিয়া।

নার্গিস আক্তার

বাঁশি বেজে উঠলো গোকুলে। কালিন্দীর কূলে। সে-সুরে মুগ্ধ হয় একটি মেয়ে! এতোটাই যে, কেঁদে উঠে তার প্রাণ! অবিরত অশ্রু ঝরে কী এক অভূতপূর্ব আনন্দ-বেদনায়! কুসুমকোমল মেয়েটিকে দেখে মুগ্ধ হয় বাঁশিওয়ালাও! শুধু কী তাই? তিন ভূবনের অধিবাসীরাও মুগ্ধ হয় তার রূপে। এ-যে সোনার মেয়ে! তিনকুলেও দেখা মেলে নি এমন সুহৃদয় নারীর! তার নাম রাধা। বাঁশিওয়ালা কৃষ্ণ তাকে বিমোহিত করে রাখে সারাক্ষণ! তারপর ত্থেকেই লোকমুখে আর বাঙলা সাহিত্যে স্থায়ীভাবে জায়গা করে নেয় রাধা আর কৃষ্ণ। রাধাকৃষ্ণ!
বাঙলা ভাষার প্রথম মহাকবি বড়ু চন্ডীদাস। তাঁর রচিত বাঙলা ভাষার প্রথম মহাকাব্য “শ্রীকৃষ্ণকীর্তন” কাহিনীকাব্যে রাধার কান্না আর কৃষ্ণের বাঁশির সুরে বাঁধা পড়ে আছে মধ্যযুগের বাঙলা ভাষা। যে-কাহিনী কাল-কালান্তর পেরিয়েও বিমোহিত করে রেখেছে বাঙলা ভাষাকে, বাঙলা সাহিত্যকে! আজো রাধাকৃষ্ণ ঘুরে ফিরে আসে গল্পে-গানে-কাব্যকথায়!
মানুষের মুখে যে ভাষার জন্ম আবার মানুষের মুখে মুখেই বদলে যায় সে ভাষা। বাঙলা ভাষাও বদলেছে। কতো পথ-প্রান্তর, কতো দেশ, কতো নদী পেরিয়ে বাঙলা ভাষা সমৃদ্ধ থেকে সুমৃদ্ধতর হয়েছে।
আপন ভাষায় যা বলি, যা লিখি তা-ই আনন্দ দেয়, ভাবনারা উড়ে বেড়ায় খোলা আকাশে! আহা কী মধুর মাতৃভাষা! কী মধুর বাঙলা ভাষা!

ভাষা শহীদ ও ভাষা সৈনিকদের প্রতি নিবেদন করছি বিনম্র শ্রদ্ধা। যাঁরা রক্ত ঝরিয়ে বাঁচিয়েছেন আপন ভাষার প্রাণকে!

ছবি: গুগল

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com