ওমানে চিকিৎসকদের বৈশাখ উদযাপন

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ডাঃ মিজানুর রহমান

(সুর হাসপাতাল,ওমান): ১৪ এপ্রিল ২০১৭। বাংলা নববর্ষের প্রথম দিন।দিনটি ছিল ওমানে  বসবাসরত বাংলাদেশী চিকিৎসক দের জন্য এক স্মরনীয় দিন।রাজধানী মাস্কাট থেকে ১৭০ কি মি  দক্ষিন পূর্বের সুর শহরে সেদিন বসেছিল এক মিলনমেলা।লাল- সাদা আর হরেকরকম বর্নিল রঙে সেজেছে যেন। বাচ্চাদের সেকি আনন্দ।ছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান,’বাংলাদেশকে জানো’ নামের শিশু-কিশোরদের প্রশ্নোত্তর পর্ব, আহার-বিহার,আবহমান বাংলার ঐতিহ্যবাহী  পন্যসামগ্রী প্রদর্শনী,বিভিন্ন বিষয়ে পুরষ্কার বিতরনী,আরো কত কি!
শুরু হয়েছিল মধ্যান্ন ভোজের মধ্যদিয়ে।এরপর বাংলাদেশের জাতীয় সংগীতের মধ্যদিয়ে শিশু-কিশোরদের জন্য আলাদা একটা অংশ।বাংলাদেশকে নিয়ে ওদের যেমন আগ্রহের শেষ নাই,তেমনি ওরা জানেও অনেক কিছু।সেটা ওদের পারফরমেন্সেই টের পাওয়া গেছে।গান নাচ কবিতার সঙ্গে ছিল মনোমুগ্ধকর বাঁশি বাজানো।
মূল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হয়েছিলো পঞ্চ কবির গানের মধ্য দিয়ে,তারপর একে একে ডাক্তার ও তাদের পরিবারবর্গ পরিবেশন করতে থাকলেন বাংলা গানের অপরূপ সব পরিবেশনা, অসাধারন সব আবৃত্তি।ছিল ২২ বছরের অভিমান ভূলে এক ডাক্তারের গিটার হাতে স্টেজে উঠা ‘ এই মন তোমাকে দিলাম’ এর মাধ্যমে।ষড়ঋতুর গান দিয়ে মূল অনুষ্ঠানের সমাপ্তি।
রেফেল ড্র,হরেক রকম পুরুষ্কার বিতরনী আর রাতের খাবার তো  ছিলই।

 

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com