কী করবে বাংলাদেশ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আহসান শামীমঃ সিরিজ জিততে টাইগারদের সামনে ২৮১ রানের টার্গেট। শ্রীলংকাকে ফেলতে হবে দশ উইকেট। এদিকে ম্যাচ জয়ের জন্য প্রথম সাত ব্যাটসম্যানের অন্তত একজনকে শেষ পর্যন্ত চান বাংলাদেশের হেড কোচ হাথুরুসিংহে। টসে জিতে হাই ভোল্টেজ এই ম্যাচে কলম্বোর সিংহলিজ স্পোর্টস ক্লাব মাঠে  ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন  টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। অসহনীয় গরমে , সবুজ ঘাস , কিছুটা ময়েস্চার যুক্ত পিচ।টস জিতলে শ্রীলংকা অধিনায়কও ফিল্ডিং করতে চেয়েছিলেন । বাংলাদেশ দলে কোন পরিবর্তন না হলেও শ্রীলংকা দলে  আগের ম্যাচে খেলা নুয়ান প্রদীপের পরিবর্তে আজ খেলছেন সেকুগে প্রসন্ন।

ব্যাট করতে নেমে আক্রমণাত্মক মনোভাব নিয়ে খেলছিলন দুই লঙ্কানরা ওপেনার দানুস্কা গুনাথিলাকা ও উপল থারাঙ্গা। প্রথম ১০ ওভারে দ্রুত ৭৬ রানের জুটি গড়েন এই দুই ওপেনার । ১১ তম ওভারে মেহেদী মিরাজ ৪ ডট বলের পর ৩৪ রান করা গুনাথিলাকা ভালো লেন্থের বলটা হাফ শট খেলে কাভারে রিয়াদের তালুবন্ধী হন ।  তখন দলীয় ৭৬ রান । এরপরই ১৩.৪ ওভারে উপল থারাঙ্গা তাসকিনের বল ৩৫ বলে ৩৫ রান করে বোল্ড আউট হয়ে দলীয় ৮৭ রানের মাথায় সাজঘরে ফেরেন ।

কোন রকম ঝুঁকি ছাড়াই অর্ধশত রানের জুটির পথে এগোচ্ছিল মেন্ডিস-চান্দিমাল। মুশফিকের চতুর উইকেট কিপিংয়ে কপাল পুড়লো চান্দিমালের। সাকিবের করা ২৭তম ওভারে খেয়ালি রান আউটের শিকার হন চান্দিমাল। ক্রিজের ভেতরে এসেই ব্যাট ও পা বাতাসে থাকায় থার্ড আম্পায়ার ২১ রান করে চান্দিমালকে আউট ঘোষণা করেন।শ্রীলঙ্কার স্কোর তখন তিন উইকেটে ১৩৬ রান।

ইনিংসের ৩০তম ওভারে মিরাজের বলে লেগ সাইডে ঠেলে দিয়ে রান নিতে চেয়েছিলেন মেন্ডিস। কিন্তু অন্য প্রান্তে থাকা মিলিন্দা সিরিওয়ারদানা দোটানার পড়ে রান আউট হন। ১২ রান যোগ করে দলীয় ১৬২ রানে আউট হন তিনি । ৩৪ তম ওভারে শ্রীলংকার মেন্ডিস অর্ধশত রান করেন। ওয়ান ডে ম্যাচে ২৩ বছরে ইতিহাসে কোন লঙ্কান ব্যাটসম্যানের এটাই সর্বোচ্চ ৫০ রানের রেকর্ড । ৩৬ তম ওভারের শেষ বলে মুস্তাফিজের দারুন একটা বল মেন্ডিসের ব্যাটের কোনায় লেগে মুশফিকের হাতে তালুবন্দি হন । আউট হওয়ার আগে ৭৬ বলে ৫৬ রান যোগ করে দলীয় ১৯৪ রান ।

বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রিত বোলিং লঙ্কান ব্যাটসম্যানদের কাজটা কঠিন করে তোলে। দ্রুত রান তোলার চেষ্টায় ইনিংসের ৪৪তম ওভারে মাশরাফিকে তুলে মারতে গিয়ে মিড অনে রিয়াদের হাতে ধরা পড়েন গুনারাত্না। ব্যক্তিগত ৩৪ ও দলীয় ২১৬ রানে আউট হন এই ব্যাটসম্যান। ৪৫ তম ওভারে মুস্তাফিজের বলে ১ রান করে সাজঘরে ফেরেন প্রসন্ন। মুস্তাফিজের এটা দ্বিতীয় উইকেট শিকার । এরপর টি পেরেরা চার ছক্কার মারে লঙ্কানদের ইনিংস বড় করতে থাকেন । পেরেরা  ৩৭ বলে ৫০ রান করেন । ১১ বল ১৫ রান করে ডি পেরেরা দলীয় ২৭৬ রানের। মাথায় মাশরাফির বলে তামিমে হাতে ক্যাচ আউট হওয়ার পর ২ বল পরে ২৭৭ রানের মাথায় টি পেরেরা ৫১ রানে আউট হন । মাশরাফির এটা তৃতীয় উইকেট শিকার । লঙ্কানরা  ৯ উইকেটে ২৮০ রান করে ইনিংস শেষ করে ।

আবহাওয়ার পূর্বাভাষ আজ সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা থাকলেও আকাশ পরিস্কার ছিল ।

 

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com