অনিশ্চয়তার হাওয়ায় বাংলাদেশ-অষ্ট্রেলিয়া সিরিজ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আহসান শামীম

অষ্ট্রেলিয় ক্রিকেট বোর্ডের সাথে বেতন ভাতা নিয়ে দ্বন্ধ চলছে তাদের জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের। সমস্যা ক্রমাগত জটিল হচ্ছে। ৩০ জুনের মধ্যে সমস্যার সমাধান না হলে অজিদের বাংলাদেশ সফর হুমকির মুখে পড়বে বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে।

খেলোয়াড়দের বেতন-ভাতা,রাজস্বের অংশীদারিত্বের বিষয়েই সিএর সঙ্গে দীর্ঘদিনের বিরোধ অজি ক্রিকেটারদের। সমাধানে এগিয়ে আসছেন না কোন পক্ষই। ৩০ জুনের মধ্যে সমস্যা সমাধান না হলে আগামী পহেলা জুলাই থেকে বেকার হয়ে যাবেন অজি ক্রিকেটরা। বেকার হওয়ার আশঙ্কায় নিজেদের দাবি থেকে সরে না আসার আহ্বান জানিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার সহ-অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। একই সঙ্গে তিনি ঘোষণা দেন, দাবি পূরণ না হলে বাংলাদেশ সফর বর্জন করবেন খেলোয়াড়রা।

এগার বছর পর অষ্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টাইগারদের টেস্ট সিরিজ খেলার আয়োজন চলছে। ২০০৬ সালের পর এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের বিরুদ্ধে কোনো টেস্ট ম্যাচ খেলেনি অস্ট্রেলিয়া। ২০০৬ সালে তিন ওয়ানডে ও দুই টেস্ট ম্যাচ খেলেছিল । আগামী আগস্ট-সেপ্টেম্বরে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে আসার কথা অস্ট্রেলিয়ার। এ জন্য ১৩ সদস্যর দল ঘোষণাও হয়ে গেছে।

ওয়ার্নার বলেন, ‘১ জুলাই থেকে আমরা বেকার হয়ে যেতে পারি বলে আমাদের হুমকি দেয়া হয়েছে। আমরা আশাবাদী যে, একটা চুক্তি হবে। আমরা অস্ট্রেলিয়ার হয়ে খেলতে চাই। তবে কোনো সমাধান না হলে আমরা বাংলাদেশ সফরে যাবো না, এমনকি অ্যাশেজ সিরিজেও না।’

এবারের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির শুরুতে সে দ্বন্দ্বে যোগ পায় নতুন মাত্রা। নতুন নীতিমালায় বোর্ডের রাজস্বে কোনো অংশই রাখা হয়নি ঘরোয়া ক্রিকেটারদের। অবশ্য ওয়ার্নার-স্টিভেন স্মিথদের মতো কয়েকজন শীর্ষ ক্রিকেটারের সঙ্গে আলাদা চুক্তি করতে চেয়েছে বোর্ড। সেখানে তাদের রাজস্বের ২২ দশমিক ৫ শতাংশ দিতেও চেয়েছে সিএ। কিন্তু ওয়ার্নার চান, এ অংশটা অস্ট্রেলিয়ার সব ক্রিকেটারই যেন পায়। আর এখানেই যত বিরোধ। কারণ ওয়ার্নারদের প্রস্তাবে রাজি হচ্ছে না তারা। এ বিষয়ে বোর্ডের সঙ্গে কয়েক দফা আলোচনা করেও কোনো ফলাফল হয়নি ।

টেস্ট ক্রিকেটে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়া চারবার মুখোমুখি হয়েছে। এর মধ্যে চার ম্যাচেই অস্ট্রেলিয়া জয় পেয়েছে। চারটার মধ্যে দুইটা অনুষ্ঠিত হয়েছে অস্ট্রেলিয়া ও দুইটা অনুষ্ঠিত হয়েছে বাংলাদেশে।

এদিকে ভিক্টোরিয়ার পেসার জেমস প্যাটিনসন দলে ফিরেছেন। পাশাপাশি ফিরেছেন পেস অলরাউন্ডার হিলটন কার্টওয়েট। তিন অলরাউন্ডার নিয়ে খেলতে আসার কথা অস্ট্রেলিয়ার। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, হিলটন কার্টওয়েটের সঙ্গে আছেন অ্যাস্টন অ্যাগার। ইনজুরির কারণে এ সফরে বাদ পড়েছেন পেসার মিশেল স্টার্ক ও স্পিনার ও’ক্যাফে।অধিনায়ক হিসেবে আছেন স্টিভ স্মিথ, তার ডেপুটি হিসেবে থাকবেন ডেভিড ওয়ার্নার।

নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে ২০১৫ সালে দুই টেস্ট খেলতে আসেনি অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। নিরাপত্তা পরিস্থিতি ভালো হলে তারা আসবে এমন আশ্বাসের প্রায় ২ বছর পর  বাংলাদেশ মিশনের জন্য শক্তিশালী দল ঘোষণা করেছে অস্ট্রেলিয়া। অবশ্য সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ১৮ আগস্ট অস্ট্রেলিয়া দল ঢাকা এসে পৌঁছাবে। ২২ থেকে ২৪ আগস্ট ফতুল্লাতে তিন দিনের একটা প্রস্ততি ম্যাচ খেলবে। এরপর ২৭ থেকে ৩১ আগস্ট ঢাকার মিরপুরে হবে প্রথম টেস্ট। আর ৪ থেকে ৮ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামে হবে দ্বিতীয় টেস্ট।

ছবিঃ গুগল

 

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com