অতো শত দায় নিয়ে আর এক বিন্দু ভাবিনা আজকাল

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

লুৎফুল হোসেন

ধরা যাক একটা রুমে অগুন্তি সিডি রাখা আছে। গানের। গায়ে ঠিক লেবেল সাঁটা নেই কোনটায় কার গান কি গান।যে পছন্দ করে রবীন্দ্র সংগীত সে বাড়ী ফিরে দেখলো বাজছে ম্যাডোনা। যে মাইকেল জ্যাকসন সে পেলো রাগ ভৈরবী। আর চরম সেতার ভক্ত পেলো শাকিরার লেটেস্ট ভলিউম।বলা হলো এটাই জীবন। শোনো আমরন। কি করবেন আপনি? এই মহাজাগতিক আলোকবর্ষের হিসেবে নগন্য একটা জীবন সমান সময় মাত্র। এ আর এমন কি ! চক-খড়িতে আঁচড় কাটতে কাটতে দেখতে দেখতে দিব্যি কেটে যাবে ঠিক। নয় কি?

মানিয়ে নিতে চেষ্টা করুন। আন্তরিক ভাবে শোনার চেষ্টা করুন। ভালো লাগাতে প্রাণপাত করুন। লেগে যেতেও পারে। লাগবেনা ! কি যা তা বলছেন ! আপনি আফিম খান। দেখবেন আস্তে আস্তে সবই ভালো লাগতে শুরু করবে।বিশ্বাস না হলে বাজি ! পরজন্মে দেখা হলে . . .

আচ্ছা এবার আর এক বার ধরুন বাজি। তিন পায়ে দৌড় এ প্রজন্মের কেউ না চিনলেও আমাদের যুগের যে কাউকে জিজ্ঞেস করলেই বলে দেবে।ধরা যাক আপনি যার সংগে তিন পায়ে দৌড়াচ্ছেন সে চাইছে প্রাণপন দৌড়াতে আর আপনার ইচ্ছে হলো একটু থেমে এক কাপ চা। নইলে জীবন চলবে না। অন্যজনের যখন ইচ্ছে হলো গাছের নিচে বেঞ্চিতে বসে ক্ষণিক নিজেকে প্রকৃতিতে সঁপে দেবার তখন আপনি. . . নাহ নেহায়েতই বড্ড বেরসিক।ভাবছেন এগিয়ে যাবার শেষ সুযোগটা এভাবেই হেলায় গেলো।

বিচলিত হচ্ছেন কেন? দেখুন না একই সময় ক্ষিদে, ঘুম, ঝিমুনি, উদ্যম, কাম ভাব, খেলা দেখা, মুভি দেখা, গান শোনা এসব ইচ্ছে হয় কিনা। চেষ্টা করুন। হয়ে যাবে এক দিন।

এক দিন ঠিকই দেখবেন পছন্দের শাড়ী পরে প্রিয় রং প্রসাধন কি টিপে অপেক্ষায় বসে আছে প্রিয়া আপনার। তার পৃথিবীতে তখন আর কোনো কাজ নেই। ঘর ও সংসারের কোনো দায় নেই, এ জগতে আপনার জন্য অপেক্ষা করা ছাড়া। আর প্রিয়ার পছন্দের প্রিয় তো জগত সংসার ফেলে শুধু ভাবছে কোন ফুলটা কিনবে, কোথায় শপিংয়ে যাবে, কোন শাড়ীটা কোন দোকানের সবচেয়ে বেশী মানাবে।আচ্ছা ভেবে দেখুন তো, যে দু- পাঁচ লাইন চিঠির জন্য এক সময় লহমাকে মনে হতো যুগাধি সময় সেরকম একটা চিঠি শেষ কবে পেয়েছেন কিংবা অমন দশ বা একশো পাতার চিঠি পেলেও কতোটা আপ্লুত হবেন বা পড়ার সময় পাবেন আজ!তাহলে দোষটা কার?শুধুই আমার। বিশ্বাস করুন এই যে সূর্য আজ দেরী করে উঠলো, রোদটা বলা নেই কওয়া নেই পুড়িয়ে মারলো, অকস্মাৎ ঝমঝমিয়ে নামা বৃষ্টিতে বিকেলটা অহেতুক নষ্ট হলো ! এসবের জন্য আমি ছাড়া  মনে হয় অন্য কেউ দায়ী আছে এ জগতে?

অতো শত দায় নিয়ে আর এক বিন্দু ভাবিনা আজকাল ! জগতের এতো কিছুর জন্য দায়ী হলে ডাকসাইটে অপরাধী হলামই যদি তবে ওসব থাক পড়ে। শুনেছি অপরাধী যত বড় তার নির্বিবাদ আহলাদী জীবন যাপন সহজ ততো।একেবারে জলের মতো . . .

ছবিঃ গুগল

 

 

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন amar@pranerbangla.com